শুক্রবার, ২২ নভেম্বর ২০১৯, ০২:০৭ অপরাহ্ন
শিরোনাম:
শাহারপাড়ায় মেডিকেল সেন্টার উদ্ধোধন ও মেডিকেল ক্যাম্প অনুষ্ঠিত এম এ মান্নান প্রাথমিক মেধাবৃত্তি পরীক্ষা ২৯ নভেম্বর ‘মার্টিন স্বপ্নে ইসলামের কোনো এক নবীর কথা বারবার উচ্চারণ করছিল’ জগন্নাথপুরের নয়াবন্দর-শংকপুর সড়ক উদ্বোধন করলেন পরিকল্পনামন্ত্রী জগন্নাথপুরে পরিকল্পনামন্ত্রী-ক্ষমতায় আসতে না পেরে একটি মহল গুজব ছড়াচ্ছে মিরপুর ইউনিয়নের নবনির্বাচিত চেয়ারম্যান শেরীন শপথ নেবেন ২৫ নভেম্বর দক্ষিণ সুরমার একাধিক মামলার আসামি গ্রেফতার সাহাবাদের যুগে শিশুদের শিক্ষায় অধিক গুরুত্ব দেওয়া হতো জগন্নাথপুরের সন্তান অতিরিক্ত সচিব শিশির রায় কে ফুলেল শ্রদ্ধায় চীরবিদায় সিলেটে হিরন মাহমুদ নিপু আটক

ডুবে যাচ্ছে সোনার ফসল, চারিদিকে আহাজারি

Reporter Name
  • Update Time : শনিবার, ১ এপ্রিল, ২০১৭
  • ৮৮ Time View

আলী আহমদ :: জেলার অন্যতম বৃহৎ হাওর জগন্নাথপুরের নলুয়ার হাওরের তিনটি বেড়িবাঁধ ভেঙ্গে হাওরে পানি প্রবেশ করছে। ফলে হাওরের ১২ হাজার হেক্টরের ফসল পানিতে ডুবে যাচ্ছে বলে জানিয়েছেন স্থানীয় কৃষকরা। হাওরপাড়ের কৃষকরা জানান, শনিবার ভোর রাতে উপজেলার প্রধান নলুয়া হাওরের ডুমাখালি, শালিকা ও মাচ্ছুয়াখালি বেড়িবাঁধ ভেঙ্গে হাওরে পানি ঢুকে হাওরের কাঁচা, আধা পাকা ফসল তলিয়ে নিয়ে যাচ্ছে। গত দুদিন ধরে কৃষকরা প্রাণপন প্রচেষ্টা চালিয়েও শেষ রক্ষা করতে পারেননি তাদের কষ্টার্জিত ফসল। চোখের সামনে কষ্টার্জিত সোনালী ফসল তলিয়ে যাওয়ার করুণ দৃশ্য দেখতে হচ্ছে কৃষকদেরকে।

সরজমিন হাওর পরির্দশনকালে স্থানীয় কৃষকরা গনমাধ্যম কর্মীদের নিকট অভিযোগ করে বলেন, এবার হাওর রক্ষা বেড়িবাঁধ নির্মাণে পাউবোর কর্মকর্তাদের অনিয়ম ও দুর্নীতির কারনে এবং বাঁধে নিন্মমানের কাজ হওয়ায় কৃষকের সোনার ফসল পাকার আগেই পানিতে তলিয়ে গেছে।
এছাড়া হাওরের অনেক ঝুকিপূর্ণ স্পটে মাটি ফেলা হয়নি। বরাদ্দকৃত অর্থের সিকিভাগ কাজ না হওয়ায় অকাল বন্যার আগেই তলিয়ে গেল হাওরের ফসল। যে সব এলাকার বেড়িবাঁধ ভেঙ্গে হাওরে পানি ঢুকেছে সেই পিআইসি কমিটির সভাপতি সুজাত মিয়া মেম্বারের বিরুদ্ধেও কৃষকদের বেড়িবাঁধ নির্মাণ কাজে ব্যাপক অনিয়মের অভিযোগ তোলেছেন।
হাওরপাড়ের কৃষক ভূরাখালি গ্রামের সাইদুর রহমান জানান, আমরা গতকাল (বৃহস্পতিবার) থেকে শুক্রবার রাত সাড়ে তিনটা পর্যন্ত নলুয়া হাওরের ফসল রক্ষার জন্য সে¦চ্ছাশ্রমে ঝুঁকিপূর্ন স্থানে কাজ করেছে। হাওরে বাঁধ ভাঙন দেখা নিলে সিআইসি কমিটির সভাপতি ইউপি সদস্য সুজাত মিয়া কে আর দেখা যায়নি। তিনি বলেন, নলুয়া হাওরে এবছর তিনি ১২ কেদার জমিনে চাষাবাদ করেছেন। ফসল পাকার আগেই পানিতে তলিয়ে গেছে। গত বছরও ফসল পাইনি। কী কবর এখন চোখে পথ দেখছি না।

আরেক কৃষক ছায়াদ মিয়া জানান, এবছর তিনি নলুয়া হাওরে ৪ হাল জমিতে আবাদ করেন। এখনো জমিনের ফসল পাকেনি। আধা কাঁচা রয়েছে। ধান পাকার আগেই বাঁধ ভেঙ্গে ক্ষেতের সব সফল তলিয়ে গেছে। গত বছর শিলাবৃষ্টিতে ফসল ঘরে তুলতে পারিনি। সারাবছরের সংসারের যোগান কী করে যোগাব কিছুই বুঝে উঠতে পারছি না।
চিলাউড়া-হলদিপুর ইউনিয়নের চেয়ারম্যান আরশ মিয়া নলুয়ার হাওর তলিয়ে যাওয়ার সত্যতা নিশ্চিত করে বলেন, হাওরে কৃষকদের মধ্যে হাহাকার ও কান্না দেখা দিয়েছে। গত বছরও হাওর রক্ষা করা যায়নি। তিনি যে স্পর্টে পানি প্রবেশ করেছে সেই র্স্পটের বেড়িবাঁধ নির্মাণে ঠিকাদার ও একটি পিআইসির কাজের গাফলাতির কথা স্বীকার করেন।

জগন্নাথপুর উপজেলার নির্বাহী কর্মকর্তা মোহাম্মদ মাসুম বিল্লাহ জগন্নাথপুর টুয়েন্টিফোর ডটকমকে বলেন বাঁধ নির্মানে অনিয়ম ও দূর্নীতির কথা স্বীকার করে বলেন, শত চেষ্ঠা করেও ঝুঁকিপূর্ন বাঁধগুলো রক্ষা করা গেল না। বাঁধ ভেঙ্গে হাওরের ফসলহানি ঘটেছে। তিনি বলেন, পিআইসির লোকজনদেরকে পাওয়া গেলেও ঠিকাদারদের কোন হদিস মিলেনি।

তিনি বলেন, ক্ষতিগ্রস্থ কৃষকরা পিআইসি ও দূর্নীতিবাজ ঠিকাদারের বিরুদ্ধে ব্যবস্থা গ্রহনের জন্য দাবী করেছেন। উপজেলা কৃষি কর্মকর্তা শওকত ওসমান মজুমদার জগন্নাথপুর টুয়েন্টিফোর ডটকমকে জানান, এবছর নলুয়াহাওরসহ উপজেলার ছোটবড় ১৫টি হাওরে ২৫ হাজার হেষ্টর ফসলের চাষাবাদ করা হয়েছে। এর মধ্যে নলুয়া হাওরে ১০ হাজার হেক্টর ফসলের আবাদ করা হয়েছে।

শেয়ার করুন

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

এ জাতীয় আরো খবর
জগন্নাথপুর টুয়েন্টিফোর কর্তৃপক্ষ কর্তৃক সর্বস্বত্ব সংরক্ষিত © ২০১৯
Theme Dwonload From ThemesBazar.Com
themebasjagannathpur24